কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে ভুয়া ম্যাজিস্ট্রেট আটক


admin প্রকাশের সময় : নভেম্বর ২৯, ২০২২, ১২:০৪ অপরাহ্ন /
কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে ভুয়া ম্যাজিস্ট্রেট আটক

স্টাফ রিপোর্টার: কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে ম্যাজিস্ট্রেড সেজে দোকানে দোকানে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে টাকা দাবি করায় জনতার হাতে তিন জন আটক হয়েছেন। এ সময় কৌশলে দুজন পালিয়ে গেছেন। খবর পেয়ে জনতার হাতে আটক তিন জনকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে গেছে ফুলবাড়ী থানা পুলিশ। সোমবার সন্ধ্যায় ভুয়া ম্যাজিস্ট্রেট আটকের ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার ভাঙ্গামোড় ইউনিয়নের শিমুলতলা বাজারে।

এ ঘটনায় শিমুলতলা বাজারের দোকানদার ও সুজনেরকুটি গ্রামের বাসিন্দা আশরাফ আলী বাদী হয়ে আটক তিন জনসহ পলাতক দুই জনের বিরুদ্ধে মঙ্গলবার দুপুরে ফুলবাড়ী থানায় মামলা দায়ের করেছেন। আটক আসামিরা হলেন কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার ভাঙ্গামোড় মনোকদি তেমনী গ্রামের মহির উদ্দিনের ছেলে আব্দুল আজিজ (৩৫), উলিপুর উপজেলার যমুনা ডালিয়া পাড়া এলাকার মৃত নুর মোহাম্মদের ছেলে সিরাজুল ইসলাম ও একই উপজেলার মালতীবাড়ী মোল্লা পাড়া গ্রামের আব্দুল আজিজ মাস্টারের ছেলে ছেলে মিঠুন মিয়া (৩০)। পলাতক আসামিরা হলেন, কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার সবুজপাড়া মাধবরাম এলাকার গোলজার হোসেনের ছেলে আব্দুস সালাম (৩৫) ও উলিপুর উপজেলার ধরনীবাড়ি এলাকার আবুল কাশেম মাস্টারের ছেলে মোস্তাফিজার রহমান ওরফে বাবু(৩৮)।

সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, চক্রটি বিকালের দিকে বাজারে এসে দুটি ফার্মেসী ও একটি চা-বিস্কুটের দোকানে নিজেদের ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয় দিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে টাকা দাবি করেন। একপর্যায়ে তাদের গতিবিধি সন্দেহ হলে স্থানীয় জনতা তাদের আটক করে পুলিশে খবর দেয়।

শিমুতলা বাজারের চা-বিস্কুট দোকানদার ও মামলার বাদী আশরাফ বলেন, বিকালের দিকে আমার দোকানে তিন জন লোক এসে নিজেদের ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয় দেয়। আমাকে বিভিন্ন প্রশ্ন করে এবং বলে আমার দশ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে এখনি টাকা দিতে হবে। নইলে আমার নামে মামলা হবে। আমি ধারদেনা করে তাদেরকে পাঁচ হাজার টাকা দিয়ে দেই এবং গবীব বলে বাকি পাঁচ হাজার টাকা মাফ চেয়ে দোকান বন্ধ করে পাশের খড়িবাড়ি বাজারে চলে যাই। পরে জানতে পারি এরা ভুয়া ম্যাজিস্ট্রেট।

ওই বাজারের ঔষধ ব্যবসায়ী মজিবর রহমান বলেন, তারা পাঁচ জন বাজারে এসে আমার দোকান ও পাশের আনিচুর রহমানের ঔষধের দোকানে ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয় দিয়ে নানান ভয়ভীতি দেখিয়ে টাকা দাবি করে। আমার দোকানে নগদ টাকা না থাকায় আমি জরিমানার টাকা আনতে বাড়িতে যাই। টাকা আনার পরে তাদের কথাবার্তা ও চালচলনে সন্দেহ হলে উপস্থিত জনতার সহযোগিতার তাদের আটক করে থানায় খবর দেই। পাঁচ জনের মধ্যে দুজন ফোনে কথা বলতে বলতে দৌড়ে পালিয়ে যায়।

মামলার এজাহারে আটক আসামিরা গত ২৬ নভেম্বর তারিখে কুড়িগ্রাম সদর থানাধীন আরডিআরএস বাজারের ঔষধ ব্যবসায়ী সারডোব এলাকার বাসিন্দা আব্দুস ছাত্তারের দোকানে একই কায়দায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করে এবং নগদ ৪০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলেও উল্লেখ রয়েছে।

ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ফজলুর রহমান জানান, এঘটনায় ফুলবাড়ী থানায় প্রতারণার মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা নং- ২৭। আটক তিন আসামিকে বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Devoloped By WOOHOSTBD